ব্রেকিং নিউজ :
April 18, 2017

আজানের সময়টাই সবথেকে প্রিয় প্রিয়াঙ্কার

মুসলিম না হয়েও প্রতিদিন ভোরে কেন আজানের শব্দে ঘুম ভাঙবে? প্রশ্ন তুলেছিলেন ভারতের গায়ক সনু নিগাম। আর তার সেই মন্তব্যকে ঘিরেই চলছে জোর বিতর্ক। এবার নায়িকা প্রিয়াঙ্কা চোপড়া এক ভিডিওতে সনু নিগামের প্রশ্নের জবাব দিলেন।

প্রিয়াঙ্কার একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন নেটিজেনরা। সেখানে অভিনেত্রী বলেছিলেন, ভোপালে তিনি অপেক্ষা করেন আজান শোনার জন্য। সন্ধের সময় বেশ কয়েকটি মসজিদ থেকে আজানের শব্দ ভেসে আসে। সূর্যাস্তের মুহূর্তে আজানের সময়টাই তার সবথেকে প্রিয় বলে জানিয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা। সেই ভিডিও দাখিল করেই সনুকে জবাব দিলেন অনেকে।

অপর এক নেটিজেন পাল্টা প্রশ্ন তুলেছেন। সোনু টুইটে জানিয়েছিলেন, হজরত যখন আজানের প্রচলন করেন তখন তো বিদ্যুৎ ছিল না। তাহলে লাউডস্পিকারের ব্যবহার কেন? পাল্টা প্রশ্ন উঠেছে, পুরাণের সময়ও তো বিদ্যুৎ ছিল না। তবে হিন্দুদের নানা উৎসবেই বা এর ব্যবহার কেন? রামায়ণে তো বাজির উল্লেখ ছিল না। তাহলে এখন বাজির ব্যবহারই বা হয় কেন? তাতেও তো শব্দ ও বায়ুদূষণ হয়। ওই নেটিজেনের দাবি, এরপর থেকে রাতভর অনুষ্ঠানের অফার এলে সনু যেন তা প্রত্যাখান করেন। ধর্মের নামে লাউডস্পিকার বাজানোর যে প্রতিবাদ, তা যেন প্রতিষ্ঠা করেন সনু।

এদিকে একই প্রশ্ন তুলেছেন ভারতের এক বিচারপতি  মার্কণ্ডেয় কাটজু। তিনি দাবি করেন, রামায়ণ বা কীর্তনের ক্ষেত্রেও তো লাউডস্পিকারে শোনানো হয়। এবং তা মন্দির থেকে নয় কোনও বাড়ি বা শামিয়ানা খাঁটিয়েই করা যেতে পারে। বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলি কি তাহলে তার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করতে পারে? হোলি বা বিয়েবাড়িতেও রাত গড়িয়ে মাইক বাজানো নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিচারপতি।

সূত্র সংবাদ প্রতিদিন

একই রকম সংবাদ

সম্পাদকঃ আলী অাহমদ
যোগাযোগঃ ১৪৮/১, গ্রীণ ওয়ে, নয়াটোলা, মগবাজার, ঢাকা-১০০০
ফোনঃ ০১৭৯৪৪৪৯৯৯৭-৮
ইমেইলঃ [email protected]

Copyrıght Bangladesh24online @ 2015.               এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি ।