ব্রেকিং নিউজ :
October 21, 2017

প্রশ্ন ফাঁসের বিষয় স্বীকার করলেও নতুন করে পরীক্ষা নিবে না ঢাবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার ঘটনায় হওয়ার তোলপাড় শুরু হয়েছে। বিভিন্ন গণমাধ্যমে  প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টি  চলে আসার পর ফের এই পরীক্ষা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও সচেতন মহল ।

তারা বলছেন, সকল চাকরি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস হলেও ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস মেনে নেওয়া যায় না। এর ফলে মেধাবী শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়। এ কারণে ‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষা আবার নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তারা।

শরিফুল হাসান লিখেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি ইউনিটের পরীক্ষা ছিল আজ (শুক্রবার)। পরীক্ষা শুরুর আগেই সেই প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে। অথচ এখনো সেই পরীক্ষা বাতিলের ঘোষণা আসেনি। কর্তৃপক্ষের কাছে খুব জানতে ইচ্ছে করে প্রতি আসনের বিপরীতে যেখানে ৬১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে সেই পরীক্ষার প্রশ্নপত্র কেন ফাঁস হয়? আর ফাঁস হওয়ার পরেও কেন পরীক্ষা বাতিল হচ্ছে না! দ্রুত এই পরীক্ষা বাতিল ও যাদের অবহেলায় এই ঘটনা ঘটেছে তাদের শাস্তি চাইছি। একই সা‌থে জানতে চাই প্রশ্ন ফাঁসের ম‌তো ঘৃন্য অপরাধ বন্ধ হ‌বে ক‌বে?

মতিউর রহমান অপু ফেইসবুকে লিখেন, আসল জালিয়াত চক্র খুঁজে বের করতে হবে ওদের রিমান্ডে নিয়ে, সাথে পরীক্ষা বাতিল করতে হবে। কারণ শত শত চোর’রা ধরা পরেনি। নির্বিঘ্নে পরীক্ষা দিয়ে ঢাবিতে পড়ার আশায় বসে আছে।

আসিফ আকরাম লিখেছেন, মেডিকেলের প্রশ্ন যখন ফাঁস হয়েছিল এই নিয়ে তুমুল আন্দোলন করার পরও পরীক্ষা বাতিল হয়নি। ঢাবির ক্ষেত্রেও যদি এমন হয়, তাহলে পরিশ্রমী মেধাবী শিক্ষার্থীরা হারিয়ে যাবে।

ভর্তিচ্ছু এক শিক্ষার্থী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি যেমন আমাদের স্বপ্ন, এর জন্য তেমন পরিশ্রমও করতে হয়েছে। কিন্তু প্রশ্নের গোপনীয়তা রক্ষায় ঢাবি ব্যর্থ হয়েছে। এর ভুক্তভোগী আমরা হতে পারি না। আমরা সবাই চাই নতুন করে পরীক্ষা নেওয়া হউক। আশা করি, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শিক্ষার্থীদের প্রত্যাশার প্রতি শ্রদ্ধাশীল হবে।

এদিকে, অনেকে অভিযোগ করেছেন, পরীক্ষা শুরুর আট ঘণ্টা আগে ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্রেই ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ‘ঘ’ ইউনিটের অধীনে প্রথম বর্ষ (স্নাতক) সম্মান শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান বলেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে সেটা আমিও জানি। তবে সেটা সকাল দশটার পর; আগের রাতে নয় কোনভাবেই।

তবে এর আগে প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টি অস্বীকার করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেন, এটা একটা গুজব এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে একটা অশুভ মহলের ষড়যন্ত্র। এই বিষয়ে কোন তদন্ত কমিটি গঠন বা পুনরায় ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণের কোন ধরনের সম্ভাবনাকে নাকচ করে তিনি বলেন, এই পরীক্ষা বাতিল করে নতুন করে পরীক্ষা নেওয়ার কোন প্রশ্নই আসে না। যারা এসব গুজব ছড়াচ্ছে তাদের খুঁজে বের করা হবে।

প্রসঙ্গত, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক ভর্তিতে ‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষা চলাকালে জালিয়াতির অভিযোগে ডিজিটাল ডিভাইসসহ ১৪ জনকে আটক করা হয়। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে সিআইডির সহযোগিতায় এক ছাত্রলীগ নেতাসহ দুজনকে আটক করা হয়। এরপর শুক্রবার সকাল ১০টায় পরীক্ষা শুরুর পর বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে আরও ১২ জনকে আটক করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর এম আমজাদ আলী এ তথ্য জানিয়েছেন।

এবার ঢাবি ক্যাম্পাসে ৫৩টি ও ক্যাম্পাসের বাইরে রাজধানীর ৩৩টি স্কুল-কলেজসহ মোট ৮৬টি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ১৬১০টি (বিজ্ঞানে ১১৪৭, বিজনেস স্টাডিজে ৪১০, মানবিকে ৫৩) আসনের জন্য ভর্তিচ্ছু আবেদনকারীর সংখ্যা ছিল ৯৮ হাজার ৫৪ জন।

একই রকম সংবাদ

সম্পাদকঃ আলী অাহমদ
যোগাযোগঃ ১৪৮/১, গ্রীণ ওয়ে, নয়াটোলা, মগবাজার, ঢাকা-১০০০
ফোনঃ ০১৭৯৪৪৪৯৯৯৭-৮
ইমেইলঃ bangladesh24online.news@gmail.com

Copyrıght Bangladesh24online @ 2015.               এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি ।