ব্রেকিং নিউজ :
May 19, 2016

বিশ্বকে নারীর জন্য নিরাপদ করতে বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

1463596725বিশ্বকে নারীর জন্য নিরাপদ করতে এবং সমতা প্রতিষ্ঠায় বিশ্বনেতাদের একযোগে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ শেখ হাসিনা। সমাজ ও রাষ্ট্রের সব পর্যায়ে নারী-পুরুষের সমতা আনতে সব বাধা দূর করার অঙ্গীকার করেছেন তিনি। বুধবার বুলগেরিয়ার সোফিয়ায় গ্লোবাল উইমেন লিডারস ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ অঙ্গীকার করেন।

বাংলাদেশের তিন বারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীর ক্ষমতায়নে তার নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরে বলেন, নারী ও পুরুষের সমতা প্রতিষ্ঠায় যত প্রতিবন্ধকতা আছে, সব দূর করার অঙ্গীকার রয়েছে আমার। নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ দৃষ্টান্ত। বর্তমান বিশ্বে বাংলাদেশই সম্ভবত একমাত্র দেশ যেখানে প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা, সংসদ উপনেতা, বিরোধীদলীয় নেতা ও স্পিকার নারী। বাংলাদেশের বর্তমান সংসদে ৭০ জন নারী সদস্য, যা মোট সংসদ সদস্যের ২০ শতাংশ।

শেখ হাসিনা বলেন, ২০২০ সাল নাগাদ বাংলাদেশের সব রাজনৈতিক দলের সব পর্যায়ের কমিটিতে ৩০ শতাংশ নারী সদস্য থাকার বিষয়ে বাধ্যবাধকতা আরোপ হবে। এছাড়া স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে নারী ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচন, তৃণমূলে ইউনিয়ন পরিষদে নারীদের জন্য এক-তৃতীয়াংশ আসন সংরক্ষণ করা হবে। বাংলাদেশে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত মেয়েদের শিক্ষা অবৈতনিক করা হয়েছে, প্রাথমিক থেকে স্নাতকোত্তর পর্যন্ত প্রায় এক কোটি ৭২ লাখ শিক্ষার্থী বিভিন্ন ধরনের বৃত্তি পাচ্ছে। এছাড়া প্রাথমিক পর্যায়ে ৬০ শতাংশ নারী শিক্ষক এবং দরিদ্র পরিবারের সন্তানদের জন্য বিনামূল্যে খাবার চালুও শিক্ষায় লৈঙ্গিক সমতা আনতে ভূমিকা রাখছে। দেশজুড়ে হাসপাতালের পাশাপাশি সাড়ে ১৬ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক ও ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের মাধ্যমে নারীদের প্রজনন স্বাস্থ্য সেবা দেয়া হচ্ছে। এছাড়া সন্তান প্রসব নিরাপদ এবং মা ও নবজাতকের স্বাস্থ্যসেবায় মাতৃ স্বাস্থ্য ভাউচার স্কিম চালু করা হয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, বর্তমান বিশ্বে তৈরি পোশাক রফতানিতে বাংলাদেশ দ্বিতীয় অবস্থানে, যেখানকার প্রায় ৪৫ লাখ শ্রমিকের ৮৫ শতাংশই নারী। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রম, কূটনীতি, জঙ্গি বিমান পরিচালনা ও শীর্ষ উদ্যোক্তাদের মধ্যেও রয়েছেন নারী। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কাজ করে বৈদেশিক মুদ্রা আয়েও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে তারা। এভাবে বাংলাদেশে নারীরা সত্যিকার অর্থে বাধা ভাঙছে এবং জাতি গঠনে এখন সক্রিয় উন্নয়ন নিয়ামকে পরিণত হয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের এসব পদক্ষেপের স্বীকৃতি হিসেবে ইউনেস্কোর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে যে ‘শান্তিবৃক্ষ’ পদক দেয়া হয়েছিল তা বিশ্বের নিপীড়িত নারীদের প্রতি উৎসর্গ করছি। অনেক অর্জন সত্ত্বেও এখনো নারীর প্রতি সহিংসতা, বাল্যবিয়ে এবং নারী ও মেয়ে শিশু পাচার প্রতিরোধে পুরোপুরি সফলতা আসেনি। এ ধরনের অপরাধের বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধিতে ‘বিপুল’ পরিমাণ বিনিয়োগ গুরুত্বপূর্ণ। নারী ও মেয়ে শিশুর জন্য নিরাপদ পরিবেশ, তাদের যথাযথ শিক্ষা ও দক্ষতা অর্জন এবং সামাজিক পরিবর্তনের নিয়ামক হিসেবে গড়ে তুলতে ক্ষমতায়নের জন্য যেসব চ্যালেঞ্জ তা মোকাবিলায় একযোগে বিশ্ব নেতাদের কাজ করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।

বাংলাদেশ২৪অনলাইন/এসএম

একই রকম সংবাদ

সম্পাদকঃ আলী অাহমদ
যোগাযোগঃ ১৪৮/১, গ্রীণ ওয়ে, নয়াটোলা, মগবাজার, ঢাকা-১০০০
ফোনঃ ০১৭৯৪৪৪৯৯৯৭-৮
ইমেইলঃ [email protected]

Copyrıght Bangladesh24online @ 2015.               এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি ।